মৌলভীবাজারের আবাহনে এবার ফেসবুকে দেবী দূর্গা

October 13, 2013, এই সংবাদটি ২৮৬ বার পঠিত

পূজোপাড়ার শঙ্খ আর ঢাকের বাদ্য সাত সকালেই জানান দেয়। পূজা মন্ডপগুলোতে শারদীয়া দূর্গাদেবীর নবপত্রিকা প্রকাশ ও স্থাপন, সপ্তম্যাদী কল্পারম্ভ শেষে হয় মহাসপ্তমী বিহিত পূজা। পূজো শেষে ভক্তরা দল বেঁধে অঞ্জলি দেন। শহরের মনুনদীর তীর ঘেঁষা ‘আবাহন’ পূজা পরিষদ পুরো মন্ডপ তৈরী করেছে ফেসবুক পেজের আদলে। ফেসবুকে দূর্গাদেবীর পেজে বন্ধু তালিকায় আছেন দেবলোকের সকল দেবদেবী। অনণাইনে আছেন মানব সভ্যতার অনে গুনীজন। নতুন প্রজন্মকে আকর্ষন করতে মূলত এই থিম বেছে নিয়েছেন আয়োজকেরা। সময়ের সাথে ব্যাতিক্রমী এসব থিম এ জনপদের পূজার আনন্দে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে। অত্যন্ত আকর্ষনীয় সাজের এসব পূজো মন্ডপে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভক্তরা আসছেন পূজা দেখতে। একই পাড়ায় ত্রিনয়নী পূজা পরিষদ মন্ডপে এবার পৌরানিক ‘থিম’ পার্বতীর জন্ম থেকে বিবাহ পর্যন্ত বিভিন্ন কাহিনী নিয়ে অর্ধশতাধিক মুর্তি তৈরী করা হয়েছে। সতীর মৃত্যুর পর পার্বতীর জন্ম থেকে শুরু করে মহাদেবের সাথে বিবাহেন বিভিন্ন কাহিনী ফুটিয়ে তোলা হয়েছে অর্ধশতাধিক প্রতিমার মাধ্যমে। অত্যন্ত আকর্ষনীয় সাজের এই পূজো মন্ডপে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পূজা দেখতে আসছেন ভক্তরা । ঐতিহ্যবাহী পূজা দেখতে ভিড় লেগেছে রাজনগরের পাঁচগাঁওয়ের অগ্নিবর্ণা দূর্গা, কুলাউড়ার কাদিপুর, শ্রীমঙ্গলের লালবাগ, কমলগঞ্জের আদমপুরের মনিপুরী অধ্যুষিত এলাকার বিভিন্ন মন্ডপে। সনাতন বিশ্বাস ও পঞ্জিকা মতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার দোলায় চড়ে মর্ত্যলোকে এসেছেন। যার ফল হচ্ছে মড়ক। আর বিদায় নেবেন গজে (হাতি) চড়ে। যার ফল হিসেবে বসুন্ধরা হবে সুজলা, সুফলা ও শস্যপূর্ণা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহত্তম এই ধর্মীয় উৎসবকে ঘিরে সারা দেশের মতো মৌলভীবাজার জেলাতেও উৎসবের আমেজ বইছে সকল ধর্ম-বর্নের মানুষের মনে। দূর্গোতসব হয়ে উঠেছে সার্বজনীন উতসব।
পূজোপাড়ার শঙ্খ আর ঢাকের বাদ্য সাত সকালেই জানান দেয়। পূজা মন্ডপগুলোতে শারদীয়া দূর্গাদেবীর নবপত্রিকা প্রকাশ ও স্থাপন, সপ্তম্যাদী কল্পারম্ভ শেষে হয় মহাসপ্তমী বিহিত পূজা। পূজো শেষে ভক্তরা দল বেঁধে অঞ্জলি দেন। শহরের মনুনদীর তীর ঘেঁষা ‘আবাহন’ পূজা পরিষদ পুরো মন্ডপ তৈরী করেছে ফেসবুক পেজের আদলে। ফেসবুকে দূর্গাদেবীর পেজে বন্ধু তালিকায় আছেন দেবলোকের সকল দেবদেবী। অনণাইনে আছেন মানব সভ্যতার অনে গুনীজন। নতুন প্রজন্মকে আকর্ষন করতে মূলত এই থিম বেছে নিয়েছেন আয়োজকেরা। সময়ের সাথে ব্যাতিক্রমী এসব থিম এ জনপদের পূজার আনন্দে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে। অত্যন্ত আকর্ষনীয় সাজের এসব পূজো মন্ডপে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভক্তরা আসছেন পূজা দেখতে। একই পাড়ায় ত্রিনয়নী পূজা পরিষদ মন্ডপে এবার পৌরানিক ‘থিম’ পার্বতীর জন্ম থেকে বিবাহ পর্যন্ত বিভিন্ন কাহিনী নিয়ে অর্ধশতাধিক মুর্তি তৈরী করা হয়েছে। সতীর মৃত্যুর পর পার্বতীর জন্ম থেকে শুরু করে মহাদেবের সাথে বিবাহেন বিভিন্ন কাহিনী ফুটিয়ে তোলা হয়েছে অর্ধশতাধিক প্রতিমার মাধ্যমে। অত্যন্ত আকর্ষনীয় সাজের এই পূজো মন্ডপে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পূজা দেখতে আসছেন ভক্তরা । ঐতিহ্যবাহী পূজা দেখতে ভিড় লেগেছে রাজনগরের পাঁচগাঁওয়ের অগ্নিবর্ণা দূর্গা, কুলাউড়ার কাদিপুর, শ্রীমঙ্গলের লালবাগ, কমলগঞ্জের আদমপুরের মনিপুরী অধ্যুষিত এলাকার বিভিন্ন মন্ডপে। সনাতন বিশ্বাস ও পঞ্জিকা মতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার দোলায় চড়ে মর্ত্যলোকে এসেছেন। যার ফল হচ্ছে মড়ক। আর বিদায় নেবেন গজে (হাতি) চড়ে। যার ফল হিসেবে বসুন্ধরা হবে সুজলা, সুফলা ও শস্যপূর্ণা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহত্তম এই ধর্মীয় উৎসবকে ঘিরে সারা দেশের মতো মৌলভীবাজার জেলাতেও উৎসবের আমেজ বইছে সকল ধর্ম-বর্নের মানুষের মনে। দূর্গোতসব হয়ে উঠেছে সার্বজনীন উতসব। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •