মৌলভীবাজারে বিএনপির দু-গ্রুফের সংঘর্ষের ঘটনায় পৃথক ৪টি মামলা

August 28, 2013, এই সংবাদটি ৩২১ বার পঠিত

মৌলভীবাজারে বিএনপির দু-গ্রুফের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি ৩টি মামলা দায়ের হয়েছে। কমিউনিটি সেন্টার ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আরেকটি পৃথক মামলা হয়েছে। গত ২৬ আগস্ট সোমবার কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি আয়োজিত কর্মীসভাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় মৌলভীবাজার মডেল থানায় ৩টি ও শ্রীমঙ্গল থানায় ১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২৮ আগষ্ট বুধবার জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এম নাসের রহমান গ্রুপের সাদিক আহমদ বাদী হয়ে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল করিম ময়ূনকে প্রধান আসামী করে ৩৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় কয়েকটি গাড়ী ও মটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ, কমিউনিটি সেন্টার ভাংচুর সহ নেতাকর্মীদের মারাত্মক ভাবে জখম করার অভিযোগ মামলায় উল্লেখ করেন। অপরদিকে জেলা বিএনপির সাধারণ সা¤পাদক খালেদা রব্বানী গ্রুপের জুনেদ আহমদ বাদী হয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরীকে প্রদান আসামী করে ৩৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় নেতা কর্মীদের জখম, গাড়ী ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের বিষয় উল্লেখ করেন। পৃথক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ রুমেল কমিউনিটি সেন্টারের মালিক সৈয়দ আব্দুল কাহির সোহেল বাদী হয়ে শতাধিক অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তির বিরোদ্ধে মামলা করেন। মামলায় কমিউনিটি সেন্টার ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও মটর সাইকেল ভাংচুরের অভিযোগ আনেন। মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবদুল হাই চৌধুরী মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। অপর দিকে শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল্লাহ জানান শ্রীমঙ্গলের ভানুগাছ রোডে গাড়ী ভাংচুরের ঘটনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরীকে প্রদান আসামী করে ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
মৌলভীবাজারে বিএনপির দু-গ্রুফের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি ৩টি মামলা দায়ের হয়েছে। কমিউনিটি সেন্টার ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আরেকটি পৃথক মামলা হয়েছে। গত ২৬ আগস্ট সোমবার কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি আয়োজিত কর্মীসভাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় মৌলভীবাজার মডেল থানায় ৩টি ও শ্রীমঙ্গল থানায় ১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২৮ আগষ্ট বুধবার জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এম নাসের রহমান গ্রুপের সাদিক আহমদ বাদী হয়ে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল করিম ময়ূনকে প্রধান আসামী করে ৩৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় কয়েকটি গাড়ী ও মটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ, কমিউনিটি সেন্টার ভাংচুর সহ নেতাকর্মীদের মারাত্মক ভাবে জখম করার অভিযোগ মামলায় উল্লেখ করেন। অপরদিকে জেলা বিএনপির সাধারণ সা¤পাদক খালেদা রব্বানী গ্রুপের জুনেদ আহমদ বাদী হয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরীকে প্রদান আসামী করে ৩৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় নেতা কর্মীদের জখম, গাড়ী ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের বিষয় উল্লেখ করেন। পৃথক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ রুমেল কমিউনিটি সেন্টারের মালিক সৈয়দ আব্দুল কাহির সোহেল বাদী হয়ে শতাধিক অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তির বিরোদ্ধে মামলা করেন। মামলায় কমিউনিটি সেন্টার ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও মটর সাইকেল ভাংচুরের অভিযোগ আনেন। মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবদুল হাই চৌধুরী মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। অপর দিকে শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল্লাহ জানান শ্রীমঙ্গলের ভানুগাছ রোডে গাড়ী ভাংচুরের ঘটনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাজী মুজিবুর রহমান চৌধুরীকে প্রদান আসামী করে ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •