শহিদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত

December 17, 2013, এই সংবাদটি ২৭০ বার পঠিত

মৌলভীবাজারে শহিদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত হয়েছে। মুক্তিযোদ্বা জেলা ইউনিট কমান্ড এর আয়োজনে ১৪ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১১ টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মু জামাল আহমদ এর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুর রহমান,এ্যাডভোকেট মাহমুদ,আব্দুল ওয়াহাব,কফিল উদ্দিন, রাজনগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সজল চক্রবর্তী, শ্রীমঙ্গল মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মতলিব প্রমূখ । আলোচনায় বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানি বাহিনী আলবদর,রাজাকার বাহিনীর সহযোগীতায় নারকীয়ভাবে হত্যা করেছে এদেশের শ্রেষ্ট সন্তানদের। পাকবাহিনী এদেশকে মেধাশুন্য করতে স্বাধীনতার দুদিন আগে হত্যা করে শিক্ষাবিদ,চিকিৎসক,বিজ্ঞানী,সাহিত্যিক,সাংবাদিক ও শিল্পীদের। আলোচনায় এসব বুদ্ধিজিবীদের রুহের মাগফেরাত কমনা করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিক্রিতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করে মুক্তিযোদ্বা জেলা ইউনিট কমান্ড । এর পর দুপুর সাড়ে ১২টায় একটি র্যালী আদালত সড়ক প্রদক্ষিন শেষে কেন্দ্রিয় শহিদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করে।
মৌলভীবাজারে শহিদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত হয়েছে। মুক্তিযোদ্বা জেলা ইউনিট কমান্ড এর আয়োজনে ১৪ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১১ টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মু জামাল আহমদ এর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুর রহমান,এ্যাডভোকেট মাহমুদ,আব্দুল ওয়াহাব,কফিল উদ্দিন, রাজনগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সজল চক্রবর্তী, শ্রীমঙ্গল মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মতলিব প্রমূখ । আলোচনায় বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানি বাহিনী আলবদর,রাজাকার বাহিনীর সহযোগীতায় নারকীয়ভাবে হত্যা করেছে এদেশের শ্রেষ্ট সন্তানদের। পাকবাহিনী এদেশকে মেধাশুন্য করতে স্বাধীনতার দুদিন আগে হত্যা করে শিক্ষাবিদ,চিকিৎসক,বিজ্ঞানী,সাহিত্যিক,সাংবাদিক ও শিল্পীদের। আলোচনায় এসব বুদ্ধিজিবীদের রুহের মাগফেরাত কমনা করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিক্রিতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করে মুক্তিযোদ্বা জেলা ইউনিট কমান্ড । এর পর দুপুর সাড়ে ১২টায় একটি র্যালী আদালত সড়ক প্রদক্ষিন শেষে কেন্দ্রিয় শহিদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করে। স্টাফ রিপোর্টার॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •