কুলাউড়া উপজেলার বিভিন্ন জাতিসত্তার নীতিমালা সংক্রান্ত পরামর্শ ও সংলাপ সভা

August 25, 2013, এই সংবাদটি ৫৩০ বার পঠিত

প্রদীপ প্রকল্পের ইউএসএআইডি, দ্য এশিয়া ফাউন্ডেশন, ইউকেএইড এর সহযোগিতায় ও আইপিডিএস এর আয়েজনে ২২ আগষ্ট বুধবার আইপিডিএস কুলাউড়া অফিসে উপজেলা পর্যায়ে পরামর্শ ও সংলাপ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুলাউড়া ইউপিপিএফ আহবায়ক মনিকা খংলার সভাপতিত্বে ও আইপিডিএস এর কমিউনিটি সংগঠক মিজ লিসি সুমের এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভুমি) হাসিনা ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার শরীফ উল ইসলাম, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম.শাকিল রশীদ চৌধুরী, কুলাউড়া প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, জেলা ডিপিপিএফ আহবায়ক ফ্লোরা বাবলী তালাং। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইপিডিএস অফিস ইন চার্জ ও প্রদীপ প্রকল্প সমন্বয়কারী মিঃ অরিজেন খংলা এবং কিনোট উপস্থাপন করেন কমিউনিটি অর্গানাইজার লিসি সুমের। সভায় বিভিন্ন জাতিসত্তার জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ২০১০ ও জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১ এর বাস্তবায়নের আলোকে সরকারী জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ অনুযায়ী বিভিন্ন জাতিসত্তার এলাকায় সরকারী স্কুল স্থাপন, ইসাছড়া সরকারী স্কুলে কমপক্ষে একজন খাসি বা গারো শিক্ষক নিয়োগ এবং শিক্ষকদের অনুপ্রেরনা বৃদ্ধির জন্যে বিভিন্ন জাতিসত্তার মধ্যে বন্ধুসুলভ ও আন্তরিকতার সাথে শিক্ষা প্রদানের ক্ষেত্রে বেতন ভাতা বৃদ্ধি করা, জাতীয় শিক্ষানীতিমালা অনুযায়ী অত্র এলাকায় সংস্কৃতি ও ভাষা চর্চার ক্ষেত্রে সরকারী উদ্যোগ গ্রহন, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির সংস্কৃতি চর্চা, ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি সংরক্ষনে কর্মধা ইউনিয়নের কাঠালতলি ও ইসলাছড়া পুঞ্জিতে নির্মিত নৃতাত্তিক জনগোষ্ঠির কমিউনিটি সেন্টার পরিচালনার জন্য একটি কমিটি গঠন, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান আইন ২০১০ এর মাধ্যমে অত্র এলাকায় কালচারাল একাডেমী স্থাপন, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদে বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটি ও উন্নয়ন কমিটিতে বিভিন্ন জাতিসত্তার নারী নেতৃবৃন্দের সম্পৃক্তকরন, মৌলভীবাজার জেলায় বিভিন্ন জাতিসত্তার নারীর উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারী প্রদত্ত সুযোগ প্রদান, সরকারীভাবে নারীদের ক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নারী নেতৃত্ব প্রশিক্ষন প্রদান, মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলায় স্পেশিয়াল এফিয়ারস্ ডিভিশন ফান্ড বৃদ্ধিকরন নিয়ে আলোচনা করা হয়। সহকারী কমিশনার (ভুমি) হাসিনা ইসলাম বলেন, একমাত্র সংলাপ এর মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সমস্যা সমূহকে সমাধান করা সম্ভব। সরকার ভিশন ২০২১ সালে সবার জন্যে নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করার লক্ষে কার্যক্রম পরিচালনা করছে, সরকার নীতিমালার বর্হিভুত কোন কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারে না। তিনি বলেন, বর্তমান হচ্ছে তথ্যের যুগ। তথ্য সম্পর্কে জানতে হবে এবং যোগাযোগ বৃদ্ধি করতে হবে। তিনি কুলাউড়া উপজেলায় প্রধানমন্ত্রির বিশেষ তহবিল (নৃতাত্তিক ফান্ড) বৃদ্ধির লক্ষ্যে উদ্যোগ নেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।
প্রদীপ প্রকল্পের ইউএসএআইডি, দ্য এশিয়া ফাউন্ডেশন, ইউকেএইড এর সহযোগিতায় ও আইপিডিএস এর আয়েজনে ২২ আগষ্ট বুধবার আইপিডিএস কুলাউড়া অফিসে উপজেলা পর্যায়ে পরামর্শ ও সংলাপ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুলাউড়া ইউপিপিএফ আহবায়ক মনিকা খংলার সভাপতিত্বে ও আইপিডিএস এর কমিউনিটি সংগঠক মিজ লিসি সুমের এর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভুমি) হাসিনা ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার শরীফ উল ইসলাম, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম.শাকিল রশীদ চৌধুরী, কুলাউড়া প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, জেলা ডিপিপিএফ আহবায়ক ফ্লোরা বাবলী তালাং। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইপিডিএস অফিস ইন চার্জ ও প্রদীপ প্রকল্প সমন্বয়কারী মিঃ অরিজেন খংলা এবং কিনোট উপস্থাপন করেন কমিউনিটি অর্গানাইজার লিসি সুমের। সভায় বিভিন্ন জাতিসত্তার জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ২০১০ ও জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১ এর বাস্তবায়নের আলোকে সরকারী জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ অনুযায়ী বিভিন্ন জাতিসত্তার এলাকায় সরকারী স্কুল স্থাপন, ইসাছড়া সরকারী স্কুলে কমপক্ষে একজন খাসি বা গারো শিক্ষক নিয়োগ এবং শিক্ষকদের অনুপ্রেরনা বৃদ্ধির জন্যে বিভিন্ন জাতিসত্তার মধ্যে বন্ধুসুলভ ও আন্তরিকতার সাথে শিক্ষা প্রদানের ক্ষেত্রে বেতন ভাতা বৃদ্ধি করা, জাতীয় শিক্ষানীতিমালা অনুযায়ী অত্র এলাকায় সংস্কৃতি ও ভাষা চর্চার ক্ষেত্রে সরকারী উদ্যোগ গ্রহন, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির সংস্কৃতি চর্চা, ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি সংরক্ষনে কর্মধা ইউনিয়নের কাঠালতলি ও ইসলাছড়া পুঞ্জিতে নির্মিত নৃতাত্তিক জনগোষ্ঠির কমিউনিটি সেন্টার পরিচালনার জন্য একটি কমিটি গঠন, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান আইন ২০১০ এর মাধ্যমে অত্র এলাকায় কালচারাল একাডেমী স্থাপন, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদে বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটি ও উন্নয়ন কমিটিতে বিভিন্ন জাতিসত্তার নারী নেতৃবৃন্দের সম্পৃক্তকরন, মৌলভীবাজার জেলায় বিভিন্ন জাতিসত্তার নারীর উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারী প্রদত্ত সুযোগ প্রদান, সরকারীভাবে নারীদের ক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নারী নেতৃত্ব প্রশিক্ষন প্রদান, মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলায় স্পেশিয়াল এফিয়ারস্ ডিভিশন ফান্ড বৃদ্ধিকরন নিয়ে আলোচনা করা হয়। সহকারী কমিশনার (ভুমি) হাসিনা ইসলাম বলেন, একমাত্র সংলাপ এর মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সমস্যা সমূহকে সমাধান করা সম্ভব। সরকার ভিশন ২০২১ সালে সবার জন্যে নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করার লক্ষে কার্যক্রম পরিচালনা করছে, সরকার নীতিমালার বর্হিভুত কোন কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারে না। তিনি বলেন, বর্তমান হচ্ছে তথ্যের যুগ। তথ্য সম্পর্কে জানতে হবে এবং যোগাযোগ বৃদ্ধি করতে হবে। তিনি কুলাউড়া উপজেলায় প্রধানমন্ত্রির বিশেষ তহবিল (নৃতাত্তিক ফান্ড) বৃদ্ধির লক্ষ্যে উদ্যোগ নেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। এইচ ডি রুবেল॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •