হাজীপুরে ভূমি বিক্রির ঘটনাকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

December 17, 2013, এই সংবাদটি ৩৭৬ বার পঠিত

কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের মৌজা পাবই, জেএল নং ৯১, খতিয়ান নং ৫৬০/১, দাগ নং ৮৯৬, ভূমির পরিমাণ প্রায় ১৩ শতক। উক্ত তফসীল বর্ণিত ভূমি প্রায় ২৫ বছর যাবত এলাকার রজনপুর গ্রামের বাসিন্দা ওয়াহিদ আলী পিতা হানিফ উল্যাহ এবং মিরজান বেগম পিতা হানিফ উল্যাহ গংদের দখলে আছে বলে জানা গেছে এবং ২৫ বছর ধরে বর্ণিত ব্যক্তিদের দখলে থাকার বিষয়টি হাজীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মাহমুদ আলী, স্থানীয় ইউপি মেম্বার আব্দুল মুনিম সহ এলাকাবাসী নিশ্চিত করেছেন। বর্তমানে এলাকার রজনপুর গ্রামের জনৈক প্রবাসী তফসীল বর্ণিত ভূমি গোপনে দলিল করিয়া ক্রয় করার পায়তারা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, উক্ত ভূমি বিক্রয় করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যেকোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, বর্ণিত ভূমি এলাকার হাজী মোঃ ইব্রাহীম আলী জীবদ্দশায় তাঁর বড় মেয়ের পুত্র ওয়াহিদ আলী এবং মিরজান বেগমকে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবহিত করে অছি করে দেন।
কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের মৌজা পাবই, জেএল নং ৯১, খতিয়ান নং ৫৬০/১, দাগ নং ৮৯৬, ভূমির পরিমাণ প্রায় ১৩ শতক। উক্ত তফসীল বর্ণিত ভূমি প্রায় ২৫ বছর যাবত এলাকার রজনপুর গ্রামের বাসিন্দা ওয়াহিদ আলী পিতা হানিফ উল্যাহ এবং মিরজান বেগম পিতা হানিফ উল্যাহ গংদের দখলে আছে বলে জানা গেছে এবং ২৫ বছর ধরে বর্ণিত ব্যক্তিদের দখলে থাকার বিষয়টি হাজীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মাহমুদ আলী, স্থানীয় ইউপি মেম্বার আব্দুল মুনিম সহ এলাকাবাসী নিশ্চিত করেছেন। বর্তমানে এলাকার রজনপুর গ্রামের জনৈক প্রবাসী তফসীল বর্ণিত ভূমি গোপনে দলিল করিয়া ক্রয় করার পায়তারা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, উক্ত ভূমি বিক্রয় করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যেকোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, বর্ণিত ভূমি এলাকার হাজী মোঃ ইব্রাহীম আলী জীবদ্দশায় তাঁর বড় মেয়ের পুত্র ওয়াহিদ আলী এবং মিরজান বেগমকে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবহিত করে অছি করে দেন। হাজীপুর প্রতিনিধি॥

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের “আপনার প্রিয় শেয়ার বাটনটিতে ক্লিক করুন”
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •